সুতি শাড়িতে সাজি বৈচিত্র সাজে

0
146
সুতি শাড়ি
Print Friendly, PDF & Email

পুরো এশিয়া মহাদেশের সংস্কৃতিতে শাড়ি বিশাল একটি জাগায় দখল করে আছে। সাজসজ্জার কথা এলেই মনের পর্দায় ভেসে ওঠে শাড়িতে একজন সুদর্শনার প্রতিচ্ছবি। ফ্যাশনের জগতে শাড়ি নারীকে বৈচিত্র রুপে ফুটিয়ে তোলে। বিভিন্ন শাড়ির পরার ধরণ বৈচিত্র্যময় ঐতিহ্যের কথা বলে, নিজেকে সুদর্শনাদের সারিতে তুলে ধরতে সুতি শাড়ির কোনো জুড়ি নেই। আটপৌরে বা জমকালো দুই ধরনের সৌন্দর্য্য দিতে পারে সুতি শাড়ি।

সুতি শাড়ি ও আনুষাঙ্গিক জিনিসের মিল মিতালি

সুতি শাড়ি

তাঁত, কোটা, চেক, জামদানি নানা রকমের হয় সুতি শাড়ি। আঁচল এবং পাড়ের ধরনও থাকে হরেক রকম। আবার সুতি শাড়িতে ব্লকপ্রিন্ট, বাটিক, স্ক্রিনপ্রিন্ট, ভেজিটেবল ডাই, সুতি শাড়িতে কাঁথা স্টিচ, ফুলেল ও জামদানি প্রিন্ট, কুচি প্রিন্ট, অ্যাপ্লিক, গুজরাটি কাজের নকশা, এমব্রয়ডারি করেও এতে নতুন রূপ দেওয়া হয়ে থাকে। এ ছাড়াও আছে কোটা, নেট সুতি ও ফাইন সুতির কিছু শাড়ি। সুতির মতোই দেখাবে এবং আরামদায়ক এমন হাফ সিল্কের শাড়ি।

যেকোনো বয়সীরাই পরতে পারেন এই শাড়ি। সুতি শাড়ি কেবল ঐতিহ্যবাহীই নয়, স্টাইলিশও বটে। যুগ যুগ ধরে সুতি শাড়ি তার রং-রূপ পাল্টেছে কিন্তু এর কদর কমেনি এতটুকুও।

আরামদায়ক আর ঐতিহ্যবাহী বলেই নারীরা এটি বেশি পছন্দ করেন। নারীরা সুতি শাড়ির সঙ্গে কখনো চিরায়ত বাঙালি সাজ আবার কখনো বিচিত্র সমাবেশ আনেন। বর্তমানে বোট নেক, হাইনেক, স্লিভলেস নানা কাটের ও নানা রকমের ব্লাউজ, চুলের সাজ আর গয়নার ধরনের মাধ্যমেই এটিকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করা যায়।

বাহারি ব্লাউজ

শাড়ির সঙ্গে ব্লাউজটা একটু অন্য রকম পরার পরামর্শ দেন ফ্যাশন ডিজাইনাররা। বিপরীত রঙের ব্লাউজ পরার ফ্যাশন চলছে এখন, তাই শাড়ির সঙ্গে মানিয়ে যায় এমন কোনো রঙের কাতান বা সিল্ক কাপড়ের ব্লাউজ পরলে একটা জমকালো ভাব আসবে। ব্লকপ্রিন্ট, চুন্দ্রি প্রিন্ট, বাটিক, হাতের কাজ করা বা হাতে বোনা তাঁতের কাপড়ের ব্লাউজের মাধ্যমেও সুতির শাড়ির সঙ্গে সৌন্দর্য্য বৈচিত্র আনা সম্ভব। ব্লাউজের কাটিংয়েও থাকা চাই বৈচিত্র্য।

অনুষ্ঠান

অনেকের ধারণা, সুতির শাড়ি কেবল সাদামাটাভাবে উপস্থাপন করলেই ভালো দেখাবে। দিনের বেলার ঘরোয়া অনুষ্ঠানেই শুধু এটি মানায়। কিন্তু সঠিক অনুষঙ্গ ও সাজের মাধ্যমে এটি যেকোনো ধরনের অনুষ্ঠানেই পরার উপযোগী করে তোলা যায়।

মেকআপ

মেকআপ যে খুব জমকালো হতে হবে তা নয়। পার্টিতে সুতি শাড়ির সঙ্গে খুব আকর্ষণীয় একটি ব্লাউজ পরা যেতে পারে, সঙ্গে গয়নাগুলো একটু পুরোনো ধাঁচের বাছাই করা যেতে পারে। একদম ছিমছাম দেখার জন্য মুখে একটু কমপ্যাক্ট পাউডার বুলিয়ে নেওয়ার পর হালকা রঙের ব্লাশন ব্যবহার করা যেতে পারে।

গয়নায় বৈচিত্র্য

ধাতব, মাটি, কাঠ, পুঁতি, কাপড়—সব ধরনের গয়নাই মানিয়ে যায় সুতির শাড়ির সঙ্গে। শুধু শাড়ির ধরন আর কোন ধরনের অনুষ্ঠানে পরছেন সেটি খেয়াল রাখলেই হলো। বিয়ের দাওয়াতে চওড়া সোনালি পাড়ের সাদা সুতির শাড়ির সঙ্গে সোনার গয়না পরে নিতে পারেন। কাতান বা অন্য যেকোনো শাড়ির চেয়ে কম জমকালো দেখাবে না। একই শাড়ির সঙ্গে শুধু গয়না পরিবর্তন করলেই সাজে অনেকটা পার্থক্য চলে আসে। এভাবে একই শাড়ি বেশ কয়েকবার পরেও নতুন বৈচিত্র আনতে পারেন। তরুণীরা আজকাল সুতির শাড়ির সঙ্গে নানা রকম ফ্যাশন জুয়েলারি পরে থাকেন। কোনো ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠানে কাচের চুড়ি, সোনা, রুপা বা মাটির গয়নাও পরা যায়।

চোখ

টেনে আইলাইনার বা কাজল দেওয়া যেতে পারে চোখে , পাপড়িতে মাসকারা ব্যবহারে সাজটা আরও ফুটে উঠবে। শাড়ির রং থেকে যেকোনো একটি রং নিয়ে অথবা ন্যাচারাল টোনের আইশ্যাডো ব্যবহার করতে হবে। শাড়ি যদি হালকা রঙের হয় এবং চোখে যদি শুধু কাজল ও মাসকারা ব্যবহার করা হয়, তখন লিপস্টিক একটু গাঢ় রঙের ব্যবহার করতে হবে।

চুল

বিভিন্ন রকমের বেণি ও সাইড খোঁপা সুতি শাড়ির সঙ্গে ভালো লাগবে। মোট কথা, সুতির শাড়ির সঙ্গে সাজগোজ হওয়া চাই খুব স্নিগ্ধ।

জুতা

সুতি শাড়ি বা যেকোন শাড়ির সাথে একটু হাই হিল জুতা মানায়।

আরও জানুন » ফ্যাশন জগতের টুকটাক ১১টি কৌশল »

Comments

comments