পরিবেশ বান্ধব ইলেকট্রিক সাইকেল

0
435
পরিবেশ বান্ধব ইলেকট্রিক সাইকেল
পরিবেশ বান্ধব ইলেকট্রিক সাইকেল
Print Friendly, PDF & Email

কলকারখানা আর মোটরযানের ধোয়ার কারণে শহরের বাতাস দূষিত হয়ে গেছে। শহরের পরিবেশ সুন্দর রাখার জন্য সাইকেলের বিকল্প নেই। সাইকেল চালানো কষ্টসাধ্য বলে অনেকে তা চালাতে নারাজ। তবে তারা চাইলে ইলেকট্রিক মোটরচালিত সাইকেল চালাতে পারেন। এতে করে পরিবহন খরচ অনেকটাই সাশ্রয় হবে এবং বাঁচবে নগর-

সাধারণ সাইকেলের চেয়ে বেশি গতি এবং সাইকেল চালাতে কায়িকশ্রম কম হওয়ার কারণে ইলেকট্রিক সাইকেল দেশে তরুণদের কাছে দিনদিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ইলেকট্রিক সাইকেলটিকে জনপ্রিয় করতে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ইলেকট্রিক সাইকেল আমদানি করে বিক্রি করছে।

কিন্তু এসব সাইকেলের মূল্য বাইসাইকেলের চেয়ে অনেকটাই বেশি। ফলে দেশীয় প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে অনেকেই সাইকেলে ইলেকট্রিক যন্ত্রাংশ সংযোজন করে ইলেকট্রিক সাইকেলে রূপান্তর করে নিচ্ছেন।

গাজীপুরের বাংলাদেশ অ্যাডভেন্টিস সেমিনারি অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক স্যামুয়েল রানা অধিকারী, দীর্ঘদিন ধরে সাইকেলকে জনপ্রিয় করার জন্য কাজ করছেন। পাশাপাশি দেশীয় সাইকেলকে ইলেকট্রিক সাইকেলে রূপান্তরের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। এছাড়া বিভিন্ন কোম্পানী বিদেশ থেকে হ্যামারের মতো জনপ্রিয় ইলেকট্রিক সাইকেলগুলো আমদানি করে বিক্রিও করছেন।

স্যামুয়েল রানা জানান, আমদানিকৃত হ্যামার ইলেকট্রিক বাইক তিনি ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি করছেন। এছাড়া কেউ চাইলে পছন্দসই যে কোনো বাইসাইকেলকে ইলেকট্রিক বাইসাইকেলে রূপান্তর করে নিতে পারেন। ইলেকট্রিক বাইকের যন্ত্রাংশ এ দেশেই পাওয়া যায়। যন্ত্রাংশ ভেদে দাম পড়বে মাত্র হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকার মতো।

বিভাটেক লিমিটেড কম্পানী দেশে অনেক দিন ধরে ইলেকট্রিক সাইকেলের যন্ত্রাংশ সংযোজন করে বিক্রি করছেন। প্রতিষ্ঠানটির কারখানা উত্তরায়। ‘পরাগ’ নামে বিভাটেক তিনটি মডেলের ইলেকট্রিক সাইকেল বিক্রি করছে। মডেলভেদে এগুলোর দাম ২২ হাজার টাকা থেকে ২৮ হাজার টাকা পর্যন্ত।

প্রতিষ্ঠানটির হিসাব কর্মকর্তা আল-আমিন খান জানান, বিভাটেক তাদের তৈরি বাইসাইকেলগুলোতে আমদানিকৃত ইলেকট্রিক সাইকেলের যন্ত্রাংশ সংযোজন করে ইলেকট্রিক সাইকেল তৈরি করে বিক্রি করছে। প্রতিষ্ঠানটির পরিকল্পনা রয়েছে গ্রাহকদের চাহিদা মাফিক বাইসাইকেলকে ইলেকট্রিক সাইকেলে রূপান্তর করে দেয়ার।

এদিকে রাজধানীর বংশাল, ধোলাইখাল, টিপুসুলতান রোড এবং নবাবপুরে ইলেকট্রিক সাইকেলের যন্ত্রাংশ পাওয়া যায়। ইলেকট্রিক সাইকেল তৈরি জন্য ব্যাটারি, মোটর ও অন্যান্য আনুসঙ্গিক যন্ত্রাংশ কিনে অটোমেকানিক্সদের কাছে নিয়ে আপনি নিজেও ইলেকট্রিক বাইক তৈরি করে নিতে পারেন খুব সহজেই।

আসুন পরিবেশ বাঁচাই, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে উপহার দেই একটি সুন্দর দুষণ মুক্ত পরিবেশ ও দেশ।

আরও জানুন » মোবাইল চার্জ হবে কোন বিদ্যুৎ ছাড়াই »

Comments

comments