ধিক্কার

0
228
ধিক্কার
কাউসার আহাম্মদ এর কবিতা ধিক্কার
Print Friendly, PDF & Email

ধিক্কার

                              – কাউসার আহাম্মদ

অশ্রু ছোট্ট একটা শব্দ

কখনও ঝরে আনন্দে, কখনও উদ্দীপনায়,

কখনও বা দুঃখ  অথবা বেদনায়,

যখন ধূসর কালো মেঘ জমে মনের আয়নায়।

মানুষ কান্না করে, অশ্রু ঝরে

সেটা কারণে বা অকারণে,

আজ আমার কান্না বৃদ্ধদের স্বরণে।

সেই সব আশাহত ভাগ্য বঞ্চিত  মানুষ,

যাদের কে পুত্র-কন্যা দূরে ঠেলেদিয়ে

গড়তে চাইছে নিজস্ব রঙ্গিন ফানুস।

অস্বিত্বকে ভুলে ঠেলে দিয়ে দূরে

জীবনের সুখ বঞ্চিত করে,

ছুটছে তারা সুখ নামক অচিন পাখির আশায়,

কিন্তু সুখ! হ্যাঁ ধিক্কার সেই সুখ কে

যেটার ভিত্তি মিথ্যে, নিষ্ঠুরতা ও হতাশায়।

কি? কি ছিল সেই মমতাময়ী দরদী মায়ের অপরাধ?

অপরাধ তার একটাই,

মা দান করে ছিল মাতৃ দুধের স্বাদ।

করে ছিল সে নিজগর্ভে ধারণ,

বিনিময়ে পেয়েছে ঘৃনা, বঞ্চনা আর অপবাদ।

কি ছিল সেই স্নেহশীল বাবার অপরাধ?

যে করেছে আজীবন কষ্ট,

প্রতিদানে পেয়েছে দুঃখ,

করেছে নিজের সুখ নষ্ট।

অভিশাপ সেই সব পাষন্ড সন্তানদের,

ছি! ধিক্কার ঐ সকল নরাধম পাপীদের প্রতি।

যারা করেছে পিতা-মাতার সুখ স্বাছন্দ্য চুরি,

থমিয়ে দিয়েছে তাদের জীবন গতি।

আরও জানুন » মায়ের হাসি »

লেখাটি আপনার কেমন লাগলো তা আমাদেরকে অবশ্যই জানাবেন। আপনার মতামত আমাদের কাছে খুবই মূল্যবান। আপনি যদি আপনার নিজের লেখা কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ বা অন্য যেকোনো বিষয় বাঙালিয়ানা Magazine এ প্রকাশ করতে চান, তবে আমরা অত্যন্ত আনন্দের সাথে আপনার লেখা প্রকাশে সচেষ্ট হব । আগ্রহীদের এই ইমেইল ঠিকানায় bangalianamagazine@gmail.com যোগাযোগের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হল । Copy করা কোন লেখা পাঠাবেন না। দয়া করে আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে, আপনার পাঠানো লেখাটি অনলাইনে আগে কোথাও প্রকাশিত হয়নি। যদি অনলাইনে আগে অন্য কোথাও আপনার লেখাটি প্রকাশিত হয়ে থাকে, তাহলে আমরা সেটা প্রকাশ করতে পারব না। আমরা অরাজনৈতিক, অসাম্প্রদায়িক এবং নিরপেক্ষ।
বিঃ দ্রঃ লেখাটি কোনরকম পরিমার্জন ব্যতিরেকে সম্পুর্ণ লেখকের ভাষায় প্রকাশিত হল। লেখকের মতামত, চরিত্র এবং শব্দ-চয়ন সম্পুর্ণই লেখকের নিজস্ব । বাঙালিয়ানা Magazine প্রকাশিত কোন লেখা, ছবি, মন্তব্যের দায়দায়িত্ব বাঙালিয়ানা Magazine কর্তৃপক্ষ বহন করবে না।

জন্ম ১৯৮৩ সনে নারায়ণঞ্জের ফতুল্লা থানার রসুলপুর গ্রামে। ছোট্ট মধ্যবিত্ত সুখি পরিবারের ৪ সদস্যের মধ্যে আমি ছোট। বাবা স্কুলশিক্ষক ছিলেন ও মা গৃহিনী। Bangladesh Institute of Science & Technology হতে বি.বি.এ করার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে এম.বি.এ শেষ করে বর্তমানে ইউনাটেড কর্মাশিয়াল ব্যাংক লিমিটেড এ কর্মরত আছি।

Comments

comments