বাঙালির ২৬ শে মার্চ

0
2967
Print Friendly, PDF & Email

২৬ শে মার্চ আমাদের স্বাধীনতা দিবস। আজ বৃহস্পতিবার ২০১৫ স্বাধীনতা দিবসের ৪৪ বছরপুর্তি। ১৯৭১ সালের রোজ বৃহস্পতিবার রাত ১.৩০মিনিট অর্থাৎ ২৫ শে মার্চের রাত্রে পাকিস্তানী আর্মিরা যখন ক্রেকডাউন করলো এবং বঙ্গবন্ধুকে গ্রেপ্তার করল তখন ২৫শে মার্চ রাত বারোটা থেকে ২৬শে মার্চ রাত একটা ত্রিশ এর মধ্যবর্তী সময়ে জাতির পিতা স্বাধীনতার ঘোষণা করলেন, এর জন্যই ২৬ শে মার্চ আমাদের স্বাধীনতা দিবস | এই বিষয়ে বঙ্গবন্ধুর একটি ডকুমেন্টস আছে “দিস মে বী মাই লাস্ট ম্যাসেজ” নামে |

১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ পশ্চিম পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী যখন পূর্ব পাকিস্তানের নিরস্ত্র বাঙালীদের ওপর বর্বরের মতো ঘৃণ্য হামলা চালায়, সে রাতে পশ্চিম পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর হাতে পূর্ব পাকিস্তানের জনপ্রিয় বাঙালি নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান বন্দী হন। মার্চ এর ২৬ তারিখের প্রথম প্রহরে পাকিস্তান সেনাবাহিনী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গ্রেফতার করে। পূর্ব পাকিস্তানের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ চলে যান আত্মগোপনে। জনগণ তখন কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়ে। এই সঙ্কটময় মুহূর্তে ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ পূর্ব পাকিস্তানের রাজধানী ঢাকায় পশ্চিম পাকিস্তানী বাহিনীর বর্বর আক্রমণের পর লেফটেন্যান্ট জেনারেল মেজর জিয়াউর রহমান পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সাথে সম্পর্ক ত্যাগ করে বিদ্রোহ করেন এবং ২৬শে মার্চ সন্ধ্যা ৭টায় পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর বাঙালি অফিসার মেজর জিয়াউর রহমান চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা পত্র পাঠ করেন। তারপর থেকে আজো ২৬শে মার্চ এই দিনটি বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস হিসাবে পালিত হয়।

১৯৭১ সালে এই ঘোষণার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সূচনা ঘটে যা নয় মাস স্থায়ী হয়। ততকালীন সেনাবাহিনী সামনের সারি্তে থেকে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা করেন। তাঁরা বেশ কয়েকদিন চট্টগ্রাম ও নোয়াখালী অঞ্চল নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর অভিযানের মুখে কৌশলগতভাবে তাঁরা সীমান্ত অতিক্রম করেন।

১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল মেহেরপুরের মুজীব নগর থেকে ” স্বাধীনতার ঘোষণা” পত্র পাঠ করা হয় এবং কোন প্রেক্ষাপটে জাতির পিতা স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন তা পরিষ্কার ভাবে বিশ্ববাসির কাছে তুলে ধরা হয় | ওই ঘোষনা পত্র অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি করে বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রীসভা শপথ গ্রহণ করেন এবং ১৯৭২ সালের ১০ই জানুয়ারী পর্যন্ত তারা সরকার পরিচালনা করেন।

কত যে নিরীহ-নিরস্ত্র মানুষ প্রাণ দিয়ে আমাদের জন্য রেখে গেছে সাধের স্বাধীনতা – তার কোনও হিসেবও করা সম্ভব না। তাদের ঋণ অপরিশোধ্য। তাদেরই রক্তধারার ফলে লক্ষ শহীদ যোদ্ধা ভায়ের-বোনের আত্মত্যাগের নাম – বাংলাদেশ

আরও জানুন » ২৫শে মার্চের অন্ধকার কালো রাতের ইতিহাস »

Comments

comments