বর্তন ব্যবহার উপযোগী রাখার জন্য ১৪টি উপায়

0
1388
বর্তন ব্যবহার উপযোগী রাখার জন্য ১৪টি উপায়
বর্তন ব্যবহার উপযোগী রাখার জন্য ১৪টি উপায়
Print Friendly, PDF & Email

কে না চায় বর্তন বা বাসনকোসন পরিষ্কার রাখতে? কিছুদিন ব্যবহারের পর নতুন কেনা ঝকঝকে বাসনগুলো কেমন অমলিন আর প্রাণহীন হয়ে যায়। ব্যবহার করতে করতে সেই উজ্জ্বলতা হারিয়ে বাসন কোসনগুলো অনেকটাই ফিকে হয়ে পরে। দাগপড়া বাসনে খেতেও যেমন মন চায় না তেমন কাউকে খেতে দিতেও ইচ্ছে করে না। ব্যবহারের পাশাপাশি একটু সচেতন হলেই ঝকঝকে তকতকে থাকবে ব্যবহার্য বাসন কোসন। বাসনগুলোকে পুনরায় ঝকঝকে তকতকে করে তুলতে জেনে নিন ১৪টি সহজ উপায়-

 

১. প্রথম শর্ত

ব্যবহার করা বাসন কোসন ঝকঝকে রাখার প্রথম শর্ত হলো ব্যবহারের পরই ভালোভাবে পরিষ্কার করে পানি ঝড়িয়ে মুছে রাখা। তাহলে অনেকটাই রেহাই পাবেন।

২. নির্দেশনা মেনে চলা

থালা বাসন কেনার সময় অবশ্যই তার নির্দেশনাগুলো দেখে নিবেন। এসব মেনে চলার চেষ্টা করুন। তাহলে দাগের যন্ত্রণা থেকে অনেকটা মুক্তি মিলবে।

৩. লেবুর রস

মেলামাইনের জিনিসপত্র কিছুদিন ব্যবহারের পর দাগ পড়েই যায়। সেই সমস্যা থেকে বাঁচতে মাঝে মাঝেই লেবুর রস দিয়ে পরিষ্কার করলে বেশ উপকার মিলবে।

৪. লিকুইড ডিশ ক্লিনার

কাঁচের বা সিরামিকের বাসনগুলো কয়েকদিন ব্যবহার করার পরেই কেমন একটা দাগ পড়ে যায়। সেটা থেকে রক্ষা পেতে গরম পানিতে লিকুইড ডিশ ক্লিনার দিয়ে স্পঞ্জ দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। দেখবেন দাগ থাকবে না।

৫. চাল ধোঁয়ার পানি

চাল ধোঁয়ার পর সেই পানিটা ফেলে না দিয়ে বরং ঐ পানিতে স্টিল বা কাঁচের বাসন ধুয়ে তারপর পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। অনেকটা পরিচ্ছন্ন দেখাবে বাসন।

৬. মুছে ফেলার অভ্যাস করা

স্টিলের বাসন ধোয়ার পর মুছে না রাখলে বাসনে ফোটা ফোটা পানির দাগ পড়ে। এবং সেটা পরে এত স্পষ্ট ভাবে বোঝা যায় যে খুব খারাপ দেখায়। তাই এসব বাসন ধুয়ে সাথে সাথে পরিস্কার করে মুছে ফেলতে হবে তবেই মিলবে দাগ থেকে মুক্তি। অ্যালুমিনিয়াম ও রূপার তৈজসপত্রের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে চাইলে ধোয়ার সঙ্গে সঙ্গে টাওয়াল দিয়ে মুছে নিন।

৭. তেতুল, চুন ও সরিষার তেল

পিতল বা কাঁসার বাসন অনেকদিন ব্যবহার না করলে এক ধরনের দাগ দেখা যায় তাতে। সেটা তেতুল কিছু চুন নিয়ে তাতে একটু সরিষার তেল লাগিয়ে দাগে ঘসলে দাগ উঠে যাবে। আবার হলুদ গুড়ার সাথে সরিষার তেল মিশিয়েও পরিষ্কার করতে পারেন পিতলের থালা-বাসন।

৮. নাইলনের ব্রাশ-

মাটির বাসন নারকেলের ছোবা এবং ডিশবার দিয়ে পরিস্কার করলেই চলে। তবে যদি কারুকাজে খুব বেশি ময়লা জমে যায় তাহলে নাইলনের ব্রাশ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে ফেলতে পারেন।

৯. ভালোভাবে শুকানো

আপনার বাসন-কোসন পরিষ্কার করার পর ক্রোকারিজ সামগ্রী আলাদা জায়গায় শুকাতে দিন। বা ডিশর‌্যাকে রেখে পানি ঝরিয়ে নিন।

১০. ফোমের বা স্পঞ্জের ব্রাশ

সিরামিকের ক্রোকারিজ পরিস্কার করার সময় স্টিলের ব্রাশ ব্যবহার না করাই ভালো। সেক্ষেত্রে আপনি ফোমের অথবা স্পঞ্জের ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে দাগ হবে না।

১১. ডিশওয়াশিং লিুকইড

অ্যালুমিনিয়ামের হাঁড়ি-পাতিলে স্টিল ব্রাশ ব্যবহার না করে ডিশওয়াশিং লিুকইড ব্যবহার করতে পারেন। ব্রাশে ঢেলে নিয়ে কয়েক ঘষাতেই বাসন-কোসন ঝকঝকে পরিষ্কার হবে।

১২. টিস্যু পেপার

সিরামিকের বাসন-কোসন ধুয়ে শুকানোর পর সাজিয়ে রাখার সময় প্লেটের মাঝে মাঝে টিস্যু পেপার দিয়ে রাখুন। প্লেটের গায়ে দাগ পড়বে না।

১৩. মেটালের জিনিস থেকে দূরে রাখা

কাঁচ বা সিরামিকের জিনিসের সাথে মেটালের জিনিস না রাখাই ভালো। ঘসা কম লাগবে বলে, দাগ পড়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যাবে।

১৪. বড় বড় থালাবাসন

বড় বড় থালাবাসন ধোয়ার সময় নিচের অংশও ভালোভাবে ধুয়ে নিন। পুরোটাই ঝকঝকে দেখাবে।

থালাবাসন পরিষ্কার করার কাজটি ধীরেসুস্থে শেষ করুন। একই ভাবে অন্য থালাবাসনও পরিষ্কার করতে পারেন। এতে করে বাসন যেমন ঝকঝকে পরিষ্কার থাকবে তেমনি আপনার পরিবার রোগ-বালাই থেকে মুক্ত থাকবে।

আরও জানুন » বইয়ের যত্নে ৭ টি পরামর্শ » 

Comments

comments