ফ্রাইড চিকেন – রেসিপি

0
1462
ফ্রাইড চিকেন রেসিপি
Print Friendly, PDF & Email

লুবনার রেসিপি – ফ্রাইড চিকেন

শীতের আমেজ শুরু হয়ে গেছে, উওরের বাতাসের সাথে গরম গরম যে কোনও ভাজা খাবার এবং তার সাথে গরম চা। সন্ধ্যাটাই অন্যরকম ভাললাগায় ভরে যায়। আর সেই আবেশটা বাস্তবে কিভাবে সম্ভব তার জন্য আজ এই ফ্রাইড চিকেন রেসিপি নিয়ে এসেছি। আশাকরি আপনাদের ভাল লাগবে।

উপকরণ

» ছোট চিকেন পিস করা -১টা 

» ময়দা – ১ কাপ

» আদা -১/২ চা চামচ

» রসুন – ১/২ চা চামচ

» কর্ন ফ্লাওয়ার – ২ টেবিল চামচ

» ডিম – ১টা

» বেকিং পাউডার – ১/২ চা চামচ

» টমেটো কেচাপ – ১ টেবিল চামচ

» গোল মরিচের গুড়া – ১ চা চামচ

» লবন – স্বাদ অনুযায়ী

» টেষ্টিং সল্ট – ১/৪ চা চামচ

» পানি – ১/৩ কাপ

» তেল –  ডুবো তেলে ভাঁজার জন্য

 

প্রস্তত প্রণালী

চিকেনের মাঝারি পিস করে ধুয়ে তারপর একটা পরিষ্কার কাপড় অথবা টিসু পেপার দিয়ে ভাল করে পানি মুছে ফেলতে হবে। 

একটা বাটিতে ডিম ভাল করে ফেটিয়ে নিন। এই ফেটানো ডিমের মধ্যে আদা, রসুন মিশিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে নিন। অন্য একটা বাটিতে, ময়দা, বেকিং পাউডার, কর্নফ্লাওয়ার, গোল মরিচের গুড়া, লবন এবং টেষ্টিং সল্ট মিশিয়ে নিন।

এইবার ময়দার মিশ্রনের মধ্যে ডিমের মিশ্রনটি দিয়ে একটু করে ঠান্ডা পানি মেশান। অল্প অল্প করে পানি মেশাবেন।

এই মিশ্রনটা যেন খুব পাতলা হয়ে না যায়। যখন দেখবেন মিশ্রনটা ঘন কিন্তু আপনি মিশ্রন থেকে হাত উঠালে হাতের থেকে ছোট ছোট সুতার মত পড়ছে তখন বুঝবেন মিশ্রনটা ঠিক হয়েছে।

এই বার চিকেনের টুকরার সাথে একটু লবন মাখিয়ে এই মিশ্রনের মধ্যে ভিজিয়ে রাখুন কমপক্ষে ৩০ মিনিট। এরপর ফ্রাইং প্যান চুলায় দিয়ে তার মধ্যে তেল দিন ।

তেল গরম হয়েছে কিনা বোঝার জন্য চামচ দিয়ে একটু মিশ্রন তেলের মধ্যে দিলে যদি মিশ্রনটি উপরে ভেসে উঠে তাহলে বুঝতে হবে তেল গরম হয়েছে। এই বার চুলার তাপ একটু কমিয়ে তারপর চিকেনের পিসগুলি দিয়ে এপাশ, ওপাশ করে ভেজে তুলুন। এইভাবে সবগুলি ভাঁজা হয়ে গেলে সালাদ দিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম ফ্রাইড চিকেন ।

যে কয়টা আপনি চান সেগুলো ভেঁজে বাকি গুলি বক্সে করে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। তাহলে আবার যখন খাবেন, অথবা বাচ্চাদের টিফিন বক্সে দিবেন তখন গরম ভেঁজে দিতে পারেন । মনে রাখবেন ফ্রাইড চিকেন গরম গরম মচমচে থাকবে কিন্তু ঠান্ডা হয়ে গেলে মচমচে ভাবটা চলে যাবে। তাই যখন খাবেন তখনই ভেঁজে খাওয়াটা ভাল ।

 

আরও জানুন » ম্যাস পটেটো – রেসিপি »

লেখালেখি বলতে যা বোঝায় সেটা কখনই আমি লিখি না। তবে ছোটবেলা থেকেই প্রচুর সাহিত্য, জীবন ধর্মী লেখার নিয়মিত পাঠিকা। বেগম, দেশ এমন অনেক পত্রিকার একনিষ্ঠ পাঠিকা। প্রবাস জীবনে চারিপাশের মানুষদের দেখে, নিজের জীবনের বিভিন্ন ঘটনা থেকে দেখে অনেক অনুভূতি হয়। সেগুলো মাঝে মাঝেই ইচ্চা হয় অন্যদের সাথে শেয়ার করি যেন তারা আমার এই অভিজ্ঞতা থেকে কিছু নিতে পারে। যদি আমার একটা অভিজ্ঞতা অন্য কারো কাজে লাগে, এই ভেবেই লেখা। ইতিহাসের উপর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাষ্টার্স পাশ করার পর কিছুদিন বেসরকারী চাকরিতে ছিলাম। এরপর ফ্যাশন টেকনোলজীর উপর ডিপ্লোমা এবং বর্তমানে বিভিন্ন ধরণের কেক এবং বেকিং নিয়ে পড়াশুনা করি। বাংলাদেশ এবং বিশ্বের ক্যান্সার নিপীড়িত মানুষের কল্যাণে মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরীর উদ্দেশ্যেই এই কেক এর পেছনে কাজ করে যাওয়া। জীবনবোধ থেকে লিখতে চাই আমার অনুভূতিগুলো।

Comments

comments