ইসলাম পরিবেশ রক্ষায় আধুনিক জীবন বিধান হিসেবে আখ্যায়িত

0
126
গাছের চারা
Print Friendly, PDF & Email

ইসলাম ধর্মেও আল্লাহর সৃষ্টিকে রক্ষার জন্য অনুসারীদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে৷ সূরা আর রহমান-এ বলা আছে, মানুষের ব্যবহারের জন্যই পৃথিবীর সবকিছু সৃষ্টি করা হয়েছে, তবে সেটা করতে হবে সতর্ক হয়ে৷

কোরআনের অনেক আয়াতেই প্রকৃতি ও পরিবেশের সঙ্গে মানুষের সম্পর্কের কথা বলা হয়েছে৷ যেমন সূরা আল বাক্বারাহ’য় বলা আছে, ‘‘তোমরা পৃথিবীর অনিষ্ট করো না৷’’

পরিবেশ সংক্রান্ত অন্যান্য সমস্যা ছাড়াও গ্রিন হাউস প্রতিক্রিয়ার ভয়াবহ ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে পরিবেশবিদরা যখন বিশ্বব্যাপী বেশি করে বনায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করছেন তখন ইসলামের বাণী অনুসন্ধান ও পর্যবেক্ষণ করলে এ ব্যাপারে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যাবে।

ইসলামকে পূর্ণাঙ্গ আধুনিক জীবন বিধান হিসেবে আখ্যা দেয়ার পেছনে অযৌক্তিক ধর্মীয় আবেগ জড়িত নয়, বরং এ ব্যাপারে বিজ্ঞানসম্মত ও বাস্তবোচিত প্রমাণ বিদ্যমান। কোনো ধর্মই বনায়নের ব্যাপারে সুদূরপ্রসারী চিন্তা করেছে বলে আমাদের জানা নেই। কিন্তু ইসলাম এ ব্যাপারে নীরব থাকেনি।

বিশ্বব্যবস্থাকে চমৎকার পরিবেশের আওতায় শান্তিময় বাসযোগ্য করার দূরদর্শী পরিকল্পনা ইসলাম অতি যত্ন ও গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করেছে সে বিষয়ে সন্দেহ নেই। ইসলাম বৃক্ষ রোপণের সুদূরপ্রসারী গুরুত্ব অনুধাবন করে তার অনুসারীদের এ ব্যাপারে তাগিদ প্রদান করেছে।

বৃক্ষ রোপণ তথা বনায়নের সাথে সংশ্লিষ্ট কার্যাবলি আল্লাহর এবাদতের সমতুল্য ঘোষণা করে ইসলাম যে শান্তির ধর্ম তা বাস্তবে রূপায়ণের চমৎকার চেষ্টা করা হয়েছে।

বিশিষ্ট সাহাবি হজরত আনাস রাঃ থেকে বর্ণিত, রাসূল (সঃ) বলেন, ‘যদি কোনো মুসলমান একটি গাছের চারা লাগায় অথবা কোনো বীজ বাপন করে, অতঃপর সেই গাছ ও ফসল দ্বারা কোনো মানুষ উপকৃত হয় কিংবা পশুপাখি ভক্ষণ করে, এর বিনিময়ে তার আমলনামায় সাদকার সওয়াব লিখিত হয়।’

দুনিয়াতে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই মুমিনের একমাত্র লক্ষ্য। বেশি বেশি গাছ লাগানোর মাধ্যমে আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টি অর্জন সম্ভব। গাছ লাগানো আল্লাহর রাসূলেরও অতি পছন্দনীয় একটি কাজ ছিল। বৃক্ষ রোপণকারী ব্যক্তি বৃক্ষ থেকে সরাসরি উপকৃত লোকদের প্রকাশ্য দোয়া পেয়ে থাকেন।

মুসলমানরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করে, মৃত্যুই মানুষের জীবনের চূড়ান্ত সমাপ্তি নয়। মৃত্যুর পরও অনন্ত একটা সময় মানুষকে পার করতে হবে। ইসলাম ঘোষণা করেছেঃ মৃত্যুর মাধ্যমে একজন মুসলমান আপাতত কর্মদক্ষতা হারালেও ভালোমন্দের প্রতিফল তিনি অব্যাহত রাখতে পারেন, যদি তিনি দুনিয়াতে কোনো উপযুক্ত অবলম্বন অবশিষ্ট রেখে যান।

ঈমানদার পুরুষ ও ঈমানদার নারী একে অপরের সহায়ক। তারা একে অপরকে ভাল শিক্ষা দেয় এবং মন্দ থেকে বিরত রাখে। তাই আপনিও একটি গাছ লাগিয়ে যথাযথ পরিচর্যার মাধ্যমে গাছটিকে পরিণত করে গেলে তা থেকে মানুষ, পশুপাখি, পরিবেশ যে উপকার ভোগ করবে তার সওয়াব আপনার মৃত্যুর পরও পেতে থাকবেন। বেশি বেশি গাছ লাগানোর মাধ্যমে কোনো মুসলমান মৃত্যুর পরও তার আমলমানা সমৃদ্ধ করার অপূর্ব সুযোগ পেতে পারেন।

আরও জানুন » ইসলাম চমৎকার »

Comments

comments